মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ভবানীগঞ্জ বাজার ও কামিনীগঞ্জ বাজার

 

জুড়ী বাজারের গোড়াপত্তনের অতীত প্রেক্ষাপট খুজে জানা যায় এ দেশে যখন ইংরেজ শাসনামল ছিল,ছিল জমিদারী প্রথা ও নবাবী আমল সে সময়কালে ইংরেজদের আর্শীবাদপুষ্ট ঐ নবাব জমিদাররা কৃষকের জমির খাজনা আদায় করতেন। এক একটি বিশাল এলাকা এক একটি পরগণায় বিভক্ত ছিল। পরগণাগুলোর অধির্শর থাকতেন ঐ নবাব জমিদারগণ।

জুড়ী নদীর পূর্বাঞ্চল ছিল  পাথারিয়া পরগণা। ঐ পরগণার জমিদার রাজা রামমোহন রায়ের নিকট আত্নীয় জনৈক ভবানী কুমার রায় খাজনা আদায়ের জন্য যেখানে বসতেন সেটাই প্রথমে বাবুরবাজার পরে ভবানী বাবুর নামানুসারে ভবানীগঞ্জ বাজার হয়ে যায়। জুড়ী নদীর পশ্চিমাংশ ছিল লংলা পৃথিমপাশার পরগণার অন্তর্ভুক্ত । ঐ পরগণার নবাব আলী আমজদ খানের নির্বাচিত জনৈক কামিনী বাবু যেখানে বসে খাজনা আদায় করতেন সেঠাই কামিনীবাবুর নামানুসারে কামিনীগঞ্জ বাজার হয়ে যায়। দুই পরগণার জনগণ খাজনা প্রদানের জন্য জুড়ী নদীর দুই পার্শ্বে সমবেত হতেন। সেই লোক সমাগমের কারনেই ধীরে ধীরে দোকানপাঠ বসে এবং কালের পরিক্রমায় ব্যাপক প্রসার লাভ করে সেই খন্ড খন্ড বাজার গুলিই জুড়ী বাজার বা জুড়ী শহররূপে  আবির্ভূত হয়।